পরনের কাপড় খুলে শরী’রের স্প’র্শকাতর স্থা’নে চু’ন লাগিয়ে নি’র্যা’তন!

এক নারীকে অ’পহ’রণ ক’রে মু’ক্তিপন আদা’য় ও চুল কে’টে মধ্যযুগীয় কায়দা’য় নি’র্যা’তনে’র অ’ভিযো’গে ঝালকাঠি জে’লা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শারমীন মৌসুমি কেকা, শহর বিএনপি সাধারণ সম্পাদক,

আনিসুর রহমান তাপুসহ ৬ জনের নামে ঝালকাঠি নারী ও শি’শু নি’র্যা’ত’ন দমন ট্রাইব্যুনালে অ’ভিযো’গ দা’য়ের ক’রা হয়েছে। ভিকটিম পারভিন (৩০) নিজেই বা’দী হয়ে বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে এ অ’ভিযো’গ দা’য়ের করলে আ’দা’লতের বি’চারক বিষয়টি আমলে নিয়ে সদর থা’নার ও’সিকে এফআইআর ও ভিকটিমকে নি’রাপত্তা প্রদানের আদেশ দেন।

মা’ম’লার বর্ণনায় উল্লেখ ক’রা হয়েছে, আনিসুর রহমান তাপু, শারমীন মৌসুমি কেকা, সেলিনা আক্তার লাকি, রাখি আক্তার, ফাতেমা শরীফ, আইরিন পারভিন এ্যানিসহ ৮/১০জনে গত ৩০আগস্ট রোববার রাত ৮টার দিকে জে’লা পরিষদ ভবনের সামনের ভাড়া বাসায় ঢু’কে জিম্মি ক’রে।

গত ১০ জুলাই বোরহানউদ্দিনের সাথে দ্বিতীয় বিবাহে আব’দ্ধ হওয়ার কারণে প্রথম স্ত্রী সেলিনা আক্তার লাকি ও তার ভাই আনিচুর রহমান তাপু আওয়ামীলীগ নেত্রী কেকা’র নির্দে’শে সহযোগিরা বেধ’রক মা’রধ’র ক’রতে থাকে। একফাকে নগদ ২লাখ টাকা এবং প্রা’য় ২লাখ টাকা মূল্যের স্বর্ণালংকার লুটে নিয়ে সেখান থেকে পূর্বচাঁদকাঠি হোটেল হিলটনের,

নীচতলার একটি কক্ষে নিয়ে আ’টকে রাখে। গ’ভীর রাতে আসা’মীরা একত্রিত হয়ে বে-ধ’রক মা’রধ’র ক’রে। একটি কাচি আনিয়া মাথার চুলের কিছু অংশ কাটিয়া উ’ল্লা’স ক’রে। আ’সা’মিরা মা’রধ’র করিয়া আমা’র পরনের কাপড় খু’লে শ’রীরের স্প’র্শকাতর স্থানে চুন লা’গিয়ে দেয়।

এরপরে ১নং আসা’মী ভকিটিমের ভাইকে ফোনে অ’পহ’রণ ক’রে পূর্বচাঁদকাঠি হিলটন হোটেলের নীচতলায় আ’টকে রাখার কথা বলে ২ লাখ টাকা মু’ক্তিপণ দাবী ক’রে। ৩১ আগস্ট সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে ২লাখ টাকা নগদ মু’ক্তিপন দিয়া তাকে ছাড়িয়ে না নিলে খু’ন ক’রে লা’শ নদীতে ভাসাইয়া দেয়ার হু’মকি দেয়।

তাপু তার যৌ’নকামনা চরিতার্থ ক’রার জন্য আমা’র শ’রীরের বিভিন্ন স্প’র্শকাতর স্থানে হাত দেয়। গ’ভীর রাতে সকল আসা’মীরা আমাকে অমানুসিক নি’র্যা’ত’ন ক’রে বিভিন্ন কাগজপত্রে জো’র’ ক’রে সহি স্বাক্ষর নেয় বলেও অ’ভিযো’গ পারভিনের। স্বাক্ষর দিতে না চাইলে গলায় ওড়না পেচিয়ে শ্বা’সরো’ধ ক’রে হ’ত্যার চেষ্টা ক’রা’য়,

জীবন বাঁ’চাতে বিভিন্ন কাগজে স্বাক্ষর করিতে বাধ্য হন। রোববার রাত থেকে সোমবার দুপুর ২টা পর্যন্ত একটি কক্ষে তালাবদ্ধ ক’রে রেখে অমা’নসিক নির্মম নি’র্যা’ত’ন ক’রতে থাকে। এরপর ভাই নুরুজ্জামান এসে অবস্থা দেখে হতবিহব্বল হয়ে নগদ দুই লক্ষ টাকা দিয়ে জীবন ভিক্ষা চাইলে তালা খু’লে দিয়ে হু’মকি দিয়ে ভাইকে বলে ‘আজ তোর বোনের জীবন ভিক্ষা দিলাম।

ভবিষ্যতে যদি ও বোরহানের সাথে স’স্পর্ক রাখার চেষ্টা করো তাহলে ওকে (বোরহান) এবং তোকে (পারভিন) জীবনের তরে শেষ করিয়া ফেলিব। এখন এখান থেকে তোর বোনকে নিয়া গ্রামের বাড়ীতে চলিয়া যাবি এবং হা’সপাতা’লে বা কোন ডাক্তারের কাছে যাবিনা ও কাউকে কিছু বলবি না। থা’নায় যাবি না।

কাউকে কিছু বললে বা মা’ম’লা মোকদ্দমা করলে তোদের গ্রামে যাইয়া বাড়ীঘরে আ’গুন ধ’রিয়ে দেব।’ গু’রুতর অসু’স্থাবস্থায় একটি ফার্মেসী থেকে ও’ষু’ধ নিয়ে খাইয়ে কিছুটা সু’স্থ হলে গত ৯ সেপ্টেম্বর থা’নায় গেলে মা’ম’লা না নিয়ে আ’দা’লতে যাবার প’রামর্শ দেয়। বা’দী পারভিন জা’নান, আওয়ামী লীগ নেত্রী কেকা ,

তার সহযোগীদের এবং বিএনপি নেতা তাপু ও তার বোন লাকি আমা’র উপ যে অমানবিক নির্মম নি’র্যা’ত’ন চালিয়েছে আমি তার সুষ্ঠ বি’চার চাই। বা’দী র আ’ইনজীবী মো. শফিকুল ইসলাম জা’নান, পারভিন নির্যাতিত হয়ে হয়ে আমা’র কাছে আ’ইনী প’রামর্শের জন্য আসেন। তার কাছ থেকে যাবতীয় ঘ’টনার বর্ণনা শুনে তাকে আ’ইনের আশ্রয় নেয়ার প’রামর্শ ও সহযোগিতার আশ্বা’স দেই।

তার দেয়া বর্ণনা অনুযায়ী তাকে নিয়ে আ’দা’লতে হাজির করলে আ’দা’লত বিষয়টি আমলে নিয়ে সদর থা’নার ও’সিকে এফআইআর এবং ভিকটিমকে নি’রাপত্তা দেয়ার নির্দে’শ দেন। সদর থা’নার অফিসার ইন চার্জ (ও’সি) খলিলুর রহমান জা’নান, আম’রা এখন পর্যন্ত আ’দা’লতের কোন আদেশ পাইনি। আদেশ যথাযথ মাধ্যমে আমাদের কাছে আ’সলে আ’ইনানুগ ব্যব’স্থা নেয়া হবে।