পবিত্র কোরআনে শান্তি খুঁজে পেয়েছেন দাঙ্গাল কন্যা জায়রা, বিদা’য় জানালেন সিনেমাকে

আমির খানের স’ঙ্গে ‘দঙ্গল’ ছবি দিয়ে বলিউডে কাজ শুরু করেছিলেন জায়রা ওয়াসিম। ‘দঙ্গল’ ছবিতে আমির খানের মেয়ের ভূমিকায় অভিনয় ক’রতে দেখা যায় তাঁকে। এই ছবির জন্য তিনি ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডও পান।

কিন্তু জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত অভিনেত্রী বলিউডে আর কাজ ক’রতে চান না। মাত্র ৫ বছর হয়েছে তিনি বলিউডে কাজ শুরু ক’রেছেন। এর মধ্যেই কাজ ছে’ড়ে দিতে চান তিনি। ১৪ বছর বয়সে সিনেমায় অভিনয় করা শুরু করেন তিনি। এর পর আমিরের স’ঙ্গে তাঁকে দেখা গিয়েছিল ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ ছবিতেও। কিন্তু কি এমন হল যে তিনি কাজ করবেন না বলছেন?

জায়রা তার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে লি’খেছেন, পাঁচ বছর আগে তিনি যে সিদ্ধা’ন্ত নিয়েছিলেন, তা চিরকালের জন্য তার জীবন বদলে ফে’লে ছে। যে মু’হূর্তে তিনি বলিউডে পা রেখেছিলেন, তার জন্য বিশাল জনপ্রিয়তার দরজা খু’লে গিয়েছে। তিনি সাধারণ মানুষের আলোচনার মূল বিষয়বস্তু হয়ে উঠছিলেন, সাফল্যের প্রতীক হিসাবে তাকে তুলে ধ’রা হয়েছিল এবং,

প্রায়ই তাকে তরুণদের রোল মডেল হিসেবে চি’হ্নিত করা হতো। কিন্তু, তিনি যা ক’রতে চেয়েছিলেন বা হতে চেয়েছিলেন, তার কোনোটা এসব নয়, তার কাছে সাফল্য এবং ব্য’র্থতার যা ধারণা, তিনি নতুন করে তা বুঝতে শুরু ক’রেছেন। জায়রা লি’খেছেন, ‘আমি বুঝতে পেরেছি আমি অনেক দিন ধ’রে অন্য একজন হয়ে ওঠার চেষ্টা চালাচ্ছিলাম।

আমি বুঝতে পেরেছি, যদিও আমি এখানে সুন্দরভাবে ফিট হতে পারব, কিন্তু আমি এর জন্য নই। এই জগত আমাকে অনেক ভালোবাসা, সমর্থন, প্রশংসা দিয়েছে, কিন্তু এই জগত আর যেটা করেছে তা হলো আমাকে ক্রমশ অবমাননার দিকে ঠেলে দিয়েছে, ক্রমশ অসচে’তনভাবে আমি আমা’র ইমান (বিশ্বা’স) থেকে বেরিয়ে এসেছি।

কারণ আমি এমন একটা পরিবেশে কাজ করতাম যা ক্রমাগত আমা’র ইমানের মাঝে এসে দাঁড়াত, ধ’র্মের স’ঙ্গে আমা’র স’স্পর্ক বিপ’ন্ন হয়ে পড়েছিল।’ জায়রা তার পোস্টে জা’নিয়েছেন, ক্রমাগত সেই বা’ধার স’ঙ্গে মা’নসিকভাবে লড়তে শুরু করেন তিনি। বারবার নিজেকে বোঝানোর চেষ্টা করেন, এমন একটা ফিল্ডে তার কাজে’র সিদ্ধা’ন্ত একেবারে সঠিক,

এবং সেটা কখনও তার জীবনকে প্র’ভাবিত করবে না। তবে ‘নিজে’র উপর থেকে সমস্ত বারাখা (আশীর্বাদ)’ হারিয়ে ফেলছিলেন বলে জা’নান জায়রা। এরপর জায়রা লেখেন, ‘কোরআনের বিশাল এবং ঐশ্বরিক জ্ঞানের মধ্যে আমি তৃপ্তি এবং শান্তি খুঁজে পেয়েছি। প্রকৃতপক্ষে হৃদয় তার সৃষ্টিকর্তার জ্ঞান, তার গুণাবলী, তার ক’রুণা এবং তার আদেশের জ্ঞান অর্জনে শান্তি পায়।

’নিজে’র ব্য’ক্তিগত বিশ্বা’সের বদলে আল্লাহ’র ওপরেই যে ভীষণভাবে বিশ্বা’স ক’রতে শুরু ক’রেছেন জায়রা, তার উল্লেখও রয়েছে পোস্টে। এতদিন নিজে’র বিবেকের স’ঙ্গে প্রতারণা করে কীভাবে সৃষ্টিকর্তা দ্বারা সৃষ্টির প্রকৃত উদ্দেশ্য ভুলে নিজে’র জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি, তারও উল্লেখ রেখেছেন ওই পোস্টে।

শেষে সবার প্রতি জায়রার উপদেশ, ‘সাফল্য, খ্যাতি, সম্পদ যে পর্যায়ে পৌঁছে যাক না কেন, তাতে যেন কখনো শান্তি এবং নিজে’র বিশ্বা’স হারিয়ে না যায়’। এর আগে ২০১৮ সালে নিজেকে ভীষণ অবসাদগ্রস্ত জা’নিয়ে পোস্ট করেছিলেন জায়রা।

সেই পোস্টে তিনি জা’নিয়েছিলেন, গত চার বছর ধ’রে দিনে পাঁচ বার করে অ্যান্টিডিপ্রেস্যান্ট খেতে হয় তাকে। সপ্তাহের পর সপ্তাহ ঘুম হয় না। এমনকি মা’নসিক অবসাদ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছিল যে, কখনও কখনও তার আত্মহ’ত্যার চিন্তাও মাথায় এসেছিল বলে জা’নিয়েছিলেন জায়রা।